Your Website Title

Positive বার্তা (বাংলা)

জীবনের চলার পথ কে পজিটিভ করতে, পজিটিভ বার্তা

Homeউন্নয়নTripura Discusses Women Entrepreneurship | প্রস্তাবিত ত্রিপুরা শান্তিনিকেতন মেডিকেল কলেজে "মহিলা উদ্যোক্তা...

Tripura Discusses Women Entrepreneurship | প্রস্তাবিত ত্রিপুরা শান্তিনিকেতন মেডিকেল কলেজে “মহিলা উদ্যোক্তা বা entrepreneur দের ক্ষমতায়ন” বিষয়ক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছিল ৭ এপ্রিল |

Tripura Discusses Women Entrepreneurship: আগরতলা, ত্রিপুরা – আগরতলার কাছে প্রস্তাবিত ত্রিপুরা শান্তিনিকেতন মেডিকেল কলেজে রবিবার “নারী উদ্যোক্তাদের ক্ষমতায়ন” বিষয়ক একটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। ইভেন্টটি একটি স্বনির্ভর ভারত গড়তে মহিলাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা এবং তাদের জন্য উপলব্ধ বিশাল সুযোগগুলি তুলে ধরে।

এই সভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা TRPC – এর চেয়ারপার্সন পাতাল কন্যা জামাতিয়া, TTAADC প্রাক্তন অধিকর্তা ক্যাপটেন ডঃ জে এস রাঠী, ভারত সরকারের MSME বিভাগের অধিকর্তা বি পি মীনা, বিশিষ্ট সমাজসেবী নীলিমা ঘোষ, জয়ন্তী পাল, স্থানীয় পৌর প্রতিনিধি হিমানী দেববর্মা, ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপিকা চন্দ্রিকা বসু, ডাঃ দেবযানী বসু, দেবদত্তা বসু, সোমা পাল, লিপা হাসান, পুজা দাস, কিশোর কুমার ভৌমিক সহ আরও অনেকে।

এদিনের সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিশিষ্ট সমাজসেবী নীলিমা ঘোষ বলেন যে প্রধানমন্ত্রী মহিলাদের স্বশক্তিকরণের উপর জোর দিয়েছেন। আমাদের মনে রাখতে হবে যে আত্মনির্ভর ভারত গঠনে মহিলাদের অবদান তাৎপর্যপূর্ণ হতে চলেছে। তবে এটিকে বাস্তবে রূপান্তরিত করতে একাধিক পদক্ষেপ দরকার। সবার আগে দরকার মহিলাদের এগিয়ে আসার মানসিকতা।

TTAADC প্রাক্তন অধিকর্তা ডঃ জে এস রাঠী বলেন যে মহিলা entrepreneur করে গড়ে তুলতে ও তাদের স্বশক্তিকরণের প্রচুর প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। অর্থ – প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ কোন কিছুরই কোন অভাব নেই। শুধুমাত্র মহিলাদের নিজেরা কিছু করবো এই মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন যে মহিলাদের একটা বড় অংশ শুধুমাত্র রিস্ক নেবার সাহসের অভাব আর insecurity এর কারণে entrepreneur বা উদ্যোগপতি হিসাবে এগিয়ে আসেন না।

রাজ্যের মন্ত্রী তথা TRPC – এর চেয়ারপার্সন পাতাল কন্যা জামাতিয়া জানান যে সারা দেশে কর্মক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ আগের তুলানায় অনেক বেড়েছে। শিল্প-বানিজ্য ক্ষেত্রে নারী উদ্যোক্তাও বেড়েছে। এখন বহু ব্যবসায়ে পরিচালনার সিদ্ধান্ত থেকে শুরু করে সমস্ত কাজের দায়িত্বে মহিলারা রয়েছেন। আর এই কাজে শুধু শহর অঞ্চল নয়, এখানে বেশি পিছিয়ে নেই গ্রামের মহিলারাও। তারাও কৃষি, পশুপালন, সেলাইয়ের কাজ, জরির কাজ ইত্যাদির ব্যবসা করে নিজেদের সংসারে সচ্ছলতা আনার পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতি ও পরিকাঠামো গড়ে তুলতে সাহায্য করছেন। এই প্রসঙ্গে তিনি মিজোরাম ও নাগাল্যান্ডের মহিলাদের উদ্যোগ ও সামাজিক বিভিন্ন কাজে তাদের অংশগ্রহণের কথা উল্লেখ করেন।

Tripura Discusses Women Entrepreneurship (“নারী উদ্যোক্তাদের ক্ষমতায়ন”):

ডাঃ রথি এই অনুভূতির প্রতিধ্বনি করেছিলেন, উপলব্ধ অসংখ্য প্রকল্প এবং প্রশিক্ষণ কর্মসূচির কথা স্বীকার করেছেন। “সমর্থনের কোন অভাব নেই,” তিনি জোর দিয়েছিলেন। “মহিলাদের ঝুঁকি নিতে এবং উদ্যোক্তা হওয়ার সাহস প্রয়োজন।”

মন্ত্রী জামাতিয়া কর্মশক্তি এবং উদ্যোক্তাদের মধ্যে নারীর সংখ্যা বৃদ্ধির দিকে ইঙ্গিত করেন। “মহিলারা গ্রামীণ এলাকা থেকে শুরু করে শহুরে কেন্দ্র পর্যন্ত শিল্প জুড়ে ব্যবসায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন,” তিনি বলেন। “তারা কৃষি, পশুপালন এবং হস্তশিল্পের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চালিত করছে, তাদের পরিবারের জন্য চাকরি এবং সমৃদ্ধি তৈরি করছে।” জামাতিয়া মিজোরাম এবং নাগাল্যান্ডের মহিলাদের উদ্যোগেরও প্রশংসা করেছে।

উদ্যোক্তার ভবিষ্যত:

বিপি মীনা, এমএসএমই বিভাগের প্রতিনিধিত্ব করে, মহিলা উদ্যোক্তাদের সহায়তাকারী বিভিন্ন সরকারি কর্মসূচির কথা তুলে ধরেন। “সুযোগে পূর্ণ একটি দেশে, বিশেষ করে গ্রামীণ এলাকায় নারীদের অবশ্যই বড় ভাবতে হবে,” তিনি আহ্বান জানান। “তারা ভারতে উদ্যোক্তার ভবিষ্যত।”

ভারত সরকারের MSME বিভাগের অধিকর্তা বি পি মীনা মহিলাদের entrepreneur করার বিষয়ে সরকারের নানা দিক তুলে ধরে বলেন যে আমাদের মনে রাখতে হবে যে আত্মনির্ভর ভারত গঠনে মহিলাদের অবদান তাৎপর্যপূর্ণ হতে চলেছে। ভারতের মতো একটি দেশে, যেখানে প্রচুর সুযোগ আছে, বৈচিত্র আছে সেখানে নারীকে আরো বড় ভাবতে হবে। বিশেষ করে দেশের গ্রামীণ অংশেও। তাহলেই আগামী দিনে দেশকে পথ দেখাবেন মহিলা উদ্যোগপতিরা।

প্রস্তাবিত মেডিকেল কলেজের সভাপতি মলয় পিট তাদের পরিকল্পনার রূপরেখা তুলে ধরেন। “আমাদের লক্ষ্য নারীদের সক্রিয় উদ্যোক্তা হতে উদ্বুদ্ধ করা,” তিনি বলেন। “আমরা তাদের ক্ষমতায়নের জন্য এবং লিঙ্গ সমতা, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং সামাজিক অগ্রগতি প্রচার করতে আগামী বছর অনলাইন প্রশিক্ষণ এবং অফলাইন মিটিং প্রদান করব।”

আরো পড়ুন: ত্রিপুরার লক্ষ্য নারী উদ্যোক্তাদের ক্ষমতায়ন করা এবং নলেজ সিটি গড়ে তোলা

Official Website: Click Here

Join Our WhatsApp Group For New Update
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে জনপ্রিয়